কম পুঁজির নানান সহজ অনলাইন ব্যবসা । পর্ব ১

কম পুঁজির নানান সহজ অনলাইন ব্যবসা । পর্ব ১
Website Development Services Kolkata

করোনার ধাক্কা খেয়ে গোটা পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ মানুষ আজ তার পরিবারের জন্যে অর্থ উপার্জন করতে হিমশিম খাচ্ছে |অথচ ঠিক এই পরিস্থিতি তে দাঁড়িয়ে প্রচুর মানুষ নতুন ব্যবসা শুরু করেছে বা পুরোনো ব্যবসা কে বাড়িয়ে করেছে দ্বিগুন। শুধু জানা চাই এই সময় কোন ব্যবসা, কিভাবে করা যায়। 

আসুন, আমরা এই ধরণের কিছু সহজ, কম পুঁজির ও বেশি আয়ের ব্যবসার খুঁটিনাটি কাজের খবর এর এই প্রতিবেদনে জেনে নি। 

অনলাইন গ্রোসারি স্টোর 

মুদিখানার, শাক-সবজি, মাছ, ডিম, দুধ এধরণের জিনিস প্রতি বাড়িতেই প্রতিদিন প্রয়োজন পড়ে। অথচ অনেকেরই বাড়িতে বার বার বাজারে যাওয়ার মানুষের খুব অভাব। তার ওপর থাকে সঠিক দামে সঠিক কোয়ালিটির জিনিস কিনে আনা। ঠিক এই জায়গায় আসে অনলাইন গ্রোসারি স্টোরের প্রয়োজনীয়তা। 

কিভাবে শুরু করবো?

প্রথমে আপনাকে একটা গ্রোসারি স্তরের ওয়েবসাইট বানাতে হবে, যাতে খরচ পড়বে মোটামুটি ১০-১৫ হাজার টাকা। এবার আপনার এলাকার বা পাশাপাশি কোনো শহরের কোনো বড়ো মুদিখানার সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে যেখানে আপনি ভালো কোয়ালিটির, ব্র্যান্ডেড জিনিস কিছুটা ছাড়ে পাবেন। ব্যাস, এবার সমস্ত প্রোডাক্ট এর ছবি, দাম, পরিমান, এধরণের যাবতীয় তথ্য সাইট এ আপলোড করে দিন এবং অনলাইন পেমেন্ট এর জন্যে আপনার ব্যাঙ্ক একাউন্ট লিংক করে দিন। আপনার ব্যবসা রেডি। 

কিভাবে খদ্দের পাবো?

আপনি একদম অল্প খরচে ফেসবুক দিয়ে আপনার এলাকায় বিজ্ঞাপন দিতে পারেন বা হ্যান্ডবিল, লোকাল-এনাউন্সমেন্ট এসব উপায়েও আপনার ব্যবসার প্রচার করতে পারেন। সাধারণতঃ এধরণের ব্যবসা খুব তাড়াতাড়ি জনপ্রিয় হয়ে ওঠে ও প্রচুর অর্ডার পাওয়া যায়। 

কি রকম লাভ হয়?

শুরুর দিকে আপনি প্রতি মাসে ১০হাজার থেকে ২৫হাজার টাকা পর্যন্ত লাভ করতে পারেন। পরবর্তী কালে যদি হোলসেল বাজার থেকে আপনার সামগ্রী কিনতে পারেন এবং খদ্দের কে বাজারের থেকে কিছু কম দামে ভালো জিনিস বাড়ি পৌঁছে দিতে পারেন তো এই ইনকাম ডবল বা তারও বেশি হতে সময় লাগবে না। 

অনলাইন কাপড়ের বাজার

গার্মেন্টস এর ব্যবসায় খুব সহজেই ১০০% পর্যন্ত লাভ করা যায় এবং অনেকটা নির্ঝঞ্জাট ব্যবসা। একটু ব্যবসার ধরণ তা বুঝে গেলে একটা অনলাইন গার্মেন্ট স্টোরে প্রতিমাসে খুব ভালো ইনকাম করা কোনো বড়ো ব্যাপার নয়। 

কিভাবে শুরু করবো?

ঠিক গ্রোসারি স্টোরের মতোই এখানেও একটা ওয়েবসাইট বানিয়ে নিন যার খরচ মোটামুটি ১০হাজার পড়বে। এবার আপনার জেলার সদর শহরের বিভিন্ন হোলসেল কাপড়ের দোকান থেকে কিছু কাপড় কিনে বাড়িতে জমা করুন। শুরুর দিকে পুরুষ, মহিলা, বাচ্চা এরকম সব ধরণের কাপড়ের ভ্যারাইটি না রেখে যেকোনো এক ধরণের কাপড় দিয়ে শুরু করুন; যেমন ধরুন শাড়ি বা কুর্তি। তাতে আপনার কম পুঁজিতেও ভালো কালেকশন রাখা সম্ভব হবে।  এবার ওই ড্রেস এর ছবি, দাম, কাপড়ের কোয়ালিটি, ব্র্যান্ড, সাইজ এসব তথ্য সাইটে আপলোড করে দিন। 

কিভাবে খদ্দের পাবো?

যেকোনো অনলাইন ব্যবসায় খদ্দের নিয়ে আসা খুব সহজ। প্রতিদিন ১ঘন্টা করে সময় যদি আপনি ফেসবুকে দেন, আপনি খুব সহজে অনেক ভিসিটর নিয়ে আস্তে পারবেন। তবে সবাই যে কিনবে তা নয়। ধীরে ধীরে আপনার কালেকশন বাড়ান আর ছবির কোয়ালিটি বাড়ান, দেখবেন প্রতি মাসে একটা ভালো রকমের অর্ডার পেয়ে যাবেন। 

কি রকম লাভ হয়?

প্রথম দুএক মাস একটু কম লাভে যদি বিক্ৰী করেন তো পরবর্তীকালে খদ্দের পাওয়া খুব সহজ হয়ে যাবে। সাধারণত আপনি যদি ভালো কোয়ালিটির জিনিস বিক্রি করেন তো একটা অনলাইন গার্মেন্ট স্টোর থেকে মাসে ২০হাজার টাকা ইনকাম করা কোনো বড়ো ব্যাপার নয়। 

ওয়েবসাইট বানানোর জন্যে ও অন্যান্য পরামর্শের জন্যে যোগাযোগ করুন
ফোন করুন : 7688067773 নম্বরে
ভিজিট করুন: www.infohub.co.in সাইটে

 

Post Free Classified Ad | Kajer Khobor

Related Articles

1 Comment

Avarage Rating:
  • 0 / 10

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *